• খেলাধুলা

    রোনালদোর শেষ ম্যাচ নাকি গেরো কাটাবে পর্তুগাল

      প্রতিনিধি ৬ ডিসেম্বর ২০২২ , ৮:৩৩:২৪ প্রিন্ট সংস্করণ

    খেলাধুলা ডেস্ক: বয়সটা এখন ৩৭ ছুঁয়েছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। ইউরোপের এলিট সব ক্লাব ছেড়ে যোগ দিতে হয়েছে সৌদির ক্লাব আল নাসেরে। সঙ্গত কারণেই পরের বিশ্বকাপে না খেলার সম্ভাবনা প্রবল পর্তুগিজ এ কিংবদন্তির। ক্যারিয়ারে দেশের হয়ে অর্জনটা কম নয় এ তারকার। দলকে একবার জিতিয়েছেন ইউরোপসেরার শিরোপা। তবে বিশ্বমঞ্চে দলের হয়ে খুব একটা বড় অর্জন নেই রোনালদোর। তারকা এ ফরোয়ার্ডের সামনে এবার সুযোগ এসেছে বিশ্বমঞ্চে নিজেকে প্রমাণ করার।



    গত ১৬ বছর ধরে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলতে পারেনি পর্তুগাল। রোনালদোদের সামনে সুযোগ থাকছে এবার সে গেরো কাটানোর। তবে ২০১৬ সালের ইউরো চ্যাম্পিয়নদের পরীক্ষাটা নেবে সুইজারল্যান্ড। আর সুইসদের বিপক্ষে যদি কোনোভাবে ম্যাচটা হেরেই যায় পর্তুগাল, তবে এটাই হতে পারে ফুটবল বিশ্বকাপে রোনালদোর শেষ ম্যাচ।




    এবারের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বটা ভালোই কেটেছে পর্তুগালের। গ্রুপের প্রথম ম্যাচে ঘানাকে হারানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচে উরুগুয়েকে হারিয়ে শেষ ষোল নিশ্চিত করে দলটি। তবে গ্রুপের শেষ ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে হেরে কিছুটা মনোবল ভেঙেছে ব্রুনো ফার্নান্দেজ- ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোদের। এখন এই হারই রোনালদোদের জন্য কাল হয়ে দাঁড়ায় কিনা সেটাই দেখার বিষয়!

    দোহার লুসাইল স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে হবে রোনালদোদের সেই অগ্নিপরীক্ষা। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে পর্তুগালের শেষ ষোলর ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১টায়। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশি চ্যানেল গাজী টেলিভিশন ও টি-স্পোর্টস।



    এদিকে পর্তুগিজদের প্রতিপক্ষ সুইজারল্যান্ডের অপেক্ষাটা আরও বেশি। গত ৬৮ বছরে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলতে পারেনি তারা। ইউরোপের দলটি এখন পর্যন্ত মোট তিনবার কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে, যার সবশেষটা ১৯৫৪ সালে। পরের প্রায় সাত দশকে পাঁচবার বিশ্বমঞ্চে খেলে চারবার শেষ ষোলোতে উঠেও আর এগোতে পারেনি তারা। তাই তাদের জন্যও লড়াইটা নিজেদের ফিরে পাওয়ার।



    এই মুহূর্তে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে পর্তুগালকে ফেভারিট ভাবা হলেও দুই দলের মুখোমুখি দেখায় এগিয়ে সুইজারল্যান্ড। ২৫ ম্যাচে পর্তুগিজদের সুইসরা হারিয়েছে ১১ বার, হেরেছে ৯ বার। ড্র হয়েছে পাঁচটি ম্যাচ। তাছাড়া সবশেষ দেখায় নেশনস লিগেও পর্তুগালকে হারিয়েছে সুইসরা। এই ম্যাচে পর্তুগালকে হারাতে পারলে আরেকটি ইতিহাসও হবে সুইজারল্যান্ডের। প্রথমবার কোনও একটি আসরে তারা তিনটি ম্যাচ জয়ের কীর্তি গড়বে। এখন দেখার অপেক্ষা তারা সেটা করতে পারে কিনা!